01605-292531
Taltola, Khilgaon 1219
A Good Girl’s Guide to Murder (#1)

A Good Girl’s Guide to Murder (#1)

Author – Holly Jackson
Genre – YA / Crime / Mystery
Personal rating – 4/5

পিপ বা পিপা (Pip/Pippa) একজন সতেরো বছর বয়সি কিশোরী। খুব শীঘ্রই হাই স্কুল ছেড়ে বিশ্ববিদ্যালয় শুরু করতে যাচ্ছে সে। স্কুলের একটি প্রযেক্ট হিসেবে যে কোন পছন্দের বিষয় নিয়ে কাজ করার সুযোগ আসায় পিপ বেছে নেয় প্রায় ৫ বছর আগে ঘটে যাওয়া একটি হত্যার ঘটনাকে।

৫ বছর আগে এ্যন্ডি (Andie) নামের এক কিশোরীকে প্রথমে গুম ও পরবর্তিতে হত্যা করা হয় বলে জানা যায়। সকলে জেনে যায় তাকে হত্যা করেছিলো স্যাল বা স্যালিল সিং (Sal / Salil Singh) নামের এক কিশোর। এ্যন্ডির মৃতদেহটি পাওয়া যায়নি। কারন স্যাল তার বাবাকে মোবাইলে পাঠানো মেসেজে খুনের ব্যাপারটি শিকার করে আত্মহত্যা করে। এরপর কেসটি বন্ধ হয়ে যায়।

কিন্তু পিপের ধারনা স্যালিল সিং নির্দোষ ছিলো। আর তা প্রমান করার জন্যই সে কাজ শুরু করবে। শুরুতেই পিপ দেখা করে অভিযুক্ত হত্যাকারী স্যালের ছোট ভাই রবির (Ravi) সাথে, যার বর্তমান বয়স ২৩ বছর। প্রথমে অনিচ্ছা পোষন করলেও মৃত ভাইকে নির্দোষ প্রমাণ করার জন্য পিপের পাশে এসে দাড়ায় সে।

পিপ যতই এক একজনের সাক্ষাৎকার নিতে শুরু করে ততই বিভ্রান্তিমূলক দিক বেড়িয়ে আসতে থাকে। কেউ না কেউ তাকে মিথ্যে বলছে। নিখোঁজ বা মৃত এ্যন্ডি সম্পর্কে বেড়িয়ে আসে নানান তথ্য।

A Good Girl’s Guide to Murder

এমনকি যে স্যালকে নির্দোষ প্রমান করার চেষ্টায় ছিলো পিপ সেই স্যালও মিথ্যার সাথে জড়িত ছিলো বলে মনে হতে থাকে তার। যতজনের সাথে পিপ কথা বলে প্রত্যেকেই কোন না কোন ভাবে এ্যন্ডির নিখোঁজ হওয়ার সাথে জড়িত মনে হতে থাকে।

আর এসব ঘাটতে গিয়ে অজ্ঞাত কারো একের পর এক হুমকির স্বীকার হতে থাকে পিপ। অর্থাৎ কেউ অবশ্যই চাচ্ছে না সে এই রহস্যের পর্দা ভেদ করুক। কিন্তু কে তারা? স্যাল কি আসলেই খুনি ছিলো? যদি তা ই হয় তাহলে কেনই পিপকে থেমে যাওয়ার জন্য হুমকি দেয়া হচ্ছে? এ্যন্ডিকে কি আসলেই হত্যা করা হয়েছিলো নাকি তাকে কোথাও লুকিয়ে রাখা হয়েছে? কে মিথ্যা বলছে এ্যন্ডির সাথে? কেনই বা মিথ্যা বলছে?

ক্রাইম ডিটেক্টিভ বইয়ের ভক্ত হওয়ার একটা উপকারিতা হলো অনেকটা আগ থেকেই ধারনা করা যায় কি ঘটতে যাচ্ছে বা অপরাধী কে। কিন্তু এ বইয়ের লেখিকা পাঠকদের চেয়ে এক ধাপ এগিয়ে চলেছেন।

সাধারনত ইয়াং এ্যাডাল্ট বইয়ে এ ধরনের প্লট দেখা যায় না। তার উপর গল্পের মূল বিষয় ছিলো হত্যাকান্ডের রহস্য উদ্ধার নিয়ে। তাই শুরু করার পর শেষ না করে রেখে দেয়া যাচ্ছিলো না বইটি।

লেখিকার লেখার ধরন ছিলো চমৎকার। পাঠকরা নিজেরা নিজেকে পিপ মনে করে সেই চরিত্রের সাথে মিশে যাবে। পুরোটা সময় মনে হচ্ছিলো পিপের সাথে আমিও এটি সমাধান করছি। আগ বাড়িয়ে কোন কিছু বোঝার উপায় নেই।

তবে একটা পর্যায়ে কয়েকটি বিষয় পিপের আগে বুঝতে পারলেও টুইস্টগুলো আনএক্সপেক্টেড মনে হয়েছে। হুট করেই কোন কিছু বলা যাচ্ছিলো না।

পিপের চরিত্রটি অসাধারন। সে তীক্ষ্ম, স্ট্রং আবার অল্পেই কেঁদে ফেলার মতো মেয়ে। তবে হার মানার পাত্রী সে না। কিভাবে সে একজন ডিটেক্টিভের মতো সবকিছু পরিচালনা করে তা সত্যিই প্রশংসনীয়।

রবির চরিত্রটিও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। যদিও পিপ ও রবির বয়সের পার্থক্য প্রায় ৬ বছর আর এ ধরনের বইয়ে এমন বয়সের পার্থক্যের সম্পর্ক দেখা যায়না, তবুও তাদের বন্ধু্ত্বের মাধ্যমে ধীরে ধীরে সম্পর্কের বেড়ে ওঠাটা ভালো লেগেছে।

বইটিতে জাতিগত বৈষম্যের ব্যাপারটি রয়েছে। যেমন, স্যাল শ্বেত বর্নের না হয়ে ইন্ডিয়ান হওয়ায় তার কেসটি তেমন গভীরভাবে না দেখেই বন্ধ করে দেয়া হয়। সে শহরে তার পরিবারের লোকজনকে ঘৃনার চোখে দেখে সবাই। তবে ব্যাপারটি আরো ভালোভাবে হয়তো তুলে আনতে পারতেন লেখিকা।

কয়েকটি বিষয় ছিলো যা বাস্তবে অসম্ভব বা বোকামী মনে হয়েছে। যা বইটির দূর্বল দিক। এছাড়া আর কোন নেতিবাচক দিক পাইনি বইটির। যদিও লেখিকা শেষটুকু দ্রুতই শেষ করে ফেলেছেন বলে মনে হয়েছে।

এ সিরিজের ২য় বই Good Girl Bad Blood এ মাসে প্রকাশিত হওয়ার কথা রয়েছে।

There are no reviews yet.

Leave a Reply

}catch (ex){}